মোবাইল দিয়ে ৮টি সেরা ছবি কালার করার অ্যাপস ২০২৩

বর্তমানে ইন্টারনেটে অনেক রকমের মোবাইল দিয়ে ছবি কালার করার অ্যাপস রয়েছে। এদের মধ্যে কিছু অ্যাপ দারুন ভাবে কাজ করে এবং কিছু অ্যাপস একদম ফালতু। যত ভালো ছবি এডিট করতে চান না কেন, আপনার দরকার হবে ছবি এডিট করার জন্য একটি সেরা এপস। 

তো আজকে আমরা কথা বলবো ছবিতে কাজ করার সফটওয়্যার নিয়ে, যার মাধ্যমে আপনি ছবি সুন্দর করার উপায় এবং ছবি কালার করার অ্যাপস পেয়ে যাবেন। তো আসুন দেখেনি কোন কোন অ্যাপস গুলা আমরা আজকে আপনাদের সামনে রিভিল করতে যাচ্ছি। 

আরো দেখুন- সিমের মালিকানা পরিবর্তন করুন সহজে ২০২৩

৮টি সেরা ছবি কালার করার অ্যাপস ২০২৩

নিচে আমরা গুগল প্লে স্টোরে সবচেয়ে ভালো আটটি ছবি কালার করার অ্যাপস তাদের সাথে শেয়ার করেছি। নিচে সেগুলো বিস্তারিতভাবে দেওয়া আছে।

1. PhotoDirector: The All-in-One Photo Editor

PhotoDirector হচ্ছে বর্তমান সময়ের একটি জনপ্রিয় ছবি এডিটিং অ্যাপস। এর সহজে-ব্যবহারযোগ্য ইন্টারফেসের সাহায্যে, আপনি AI-চালিত বৈশিষ্ট্য, ফিল্টার, ইফেক্ট একটি বিষয়বস্তু লাইব্রেরি সহ বিস্তৃত টুল ইউজ করে অনায়াসে আপনার ফটোগুলি ভালোভাবে এডিট করতে পারেন৷ iOS Android উভয় ডিভাইসের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ এটি। গুগল প্লেস্টোর থেকেই আপনি এটি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। 

2. PicsArt: The Social Media Friendly Photo Editor

PicsArt হল একটি ভালো ফটো এডিটিং অ্যাপ্লিকেশন যা সোশাল মিডিয়া গ্রাহকদের কথা মাথায় রেখে ডিজাইন করা হয়েছে। এর ব্যবহারকারী-বান্ধব ইন্টারফেস এবং সম্প্রদায়-চালিত প্ল্যাটফর্মের সাথে, আপনি নানারকম প্রকারের স্টিকার, ফিল্টার এবং কোলাজ টেমপ্লেট ইউজ করে আপনার ফটোগুলি দ্রুত এডিট করতে পারেন৷

উপরন্তু, জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে সরাসরি ভাবে শেয়ার করার ক্ষমতা সহ, PicsArt আপনার অনুগামীদের সাথে আপনার এডিটগুলি আরো সুন্দর করতে সহজ করে তোলে। 

3. Snapseed: The Powerful Photo Editor for Casual Users

Snapseed হল একটি শক্তিশালী ছবি এডিটর যা সকল ইউজারদের কথা মাথায় রেখে ডিজাইন করা হয়েছে। 30 টিরও বেশি পেশাদার-মানের এডিটং টুলস ও ১টি দারুন ইন্টারফেস সহ, এমনকি যারা ছবি এডিটিংয়ে নতুন তারাও দ্রুত ফটো এডিটিংয়ের কাজ আয়ত্ত করতে পারে৷ উপরন্তু, RAW ডকুমেন্ট এবং প্রিসেট ও ফিল্টারের পরিসরের সাপোর্ট সহ, Snapseed নিশ্চিত করে যে অত্যাশ্চর্য ছবি তৈরি করার জন্য আপনার প্রয়োজনীয় সমস্ত টুল রয়েছে৷ 

4. YouCam Perfect: The Selfie-Focused Photo Editor

YouCam Perfect হল একটি সেলফি-ফোকাসড ফটো এডিটর যা AI-চালিত ছবি এডিটিং ও বিউটিফাইং টুলের সাথে আসে। এআই অবজেক্ট রিমুভাল, ব্যাকগ্রাউন্ড চেঞ্জার, ফেস রিটাচ এবং বডি এডিটিং টুলের মতো বৈশিষ্ট্য সহ, এই অ্যাপ্লিকেশনটি আপনাকে অত্যাশ্চর্য সেল্ফি ও অন্যান্য পিকচার সহজেই প্রস্তুত করতে দেয়। 

5. Pixlr: The Photo Editor with a Focus on Filters

Pixlr হলো বর্তমান সময়ের  একটি ফটো এডিটিং অ্যাপ যা ইউজারদের বেছে নেওয়ার জন্য দারুন প্রভাব, ওভারলে ও ফিল্টার প্রদানে বিশেষজ্ঞ। এর ইজিলি ব্যবহারযোগ্য ইন্টারফেস ও ইউজার ফ্রেন্ডলি সরঞ্জামগুলির সাহায্যে, Pixlr আপনাকে কোনো রকম এডিটিং এক্সপেরিন্সের প্রয়োজন ছাড়াই অত্যাশ্চর্য ছবি এডিট করতে সাহায্য করে।

6. Adobe Photoshop Camera: The Photo Editor for Capturing the Perfect Shot

Adobe Photoshop Camera হলো আরেকটি ভালো ফটো এডিটিং অ্যাপ্লিকেশন যা AI-চালিত Adobe Sensei টেকনোলজি ইউজ করে নিখুঁত শট ক্যাপচার করার উপর উদ্দেশ্য করে। এই অ্যাপ্লিকেশানটি একটি ছবি তোলার আগে বা পরে মাস্ক, অন্যান্য বিষয়ে সাহায্য করে। আপনার ফটোগুলি সবসময় যাতে সুন্দর করে এডিট করা যায় সে বিষয় তারা তা নিশ্চিত করে৷

7. Werble: The Photo Editor for Adding Overlays

Werble হল একটি ফটো এডিটিং বা ছবি কালার করার অ্যাপস যা আপনার ফটোতে ওভারলে এবং অ্যানিমেটেড ইফেক্ট যোগ করতে পারদর্শী। বিভিন্ন ভিজ্যুয়াল প্রভাব টেমপ্লেট ও মুভমেন্ট প্রিসেটের সাহায্যে, আপনি ফাস্ট এবং সহজেই অত্যাশ্চর্য, দারুন ছবি এডিট করতে পারেন যা অন্যসব থেকে আলাদা।

8. Canva: The Photo Editor with Templates

ক্যানভা হল একটি জনপ্রিয় ছবি এডিটিং অ্যাপ যা ব্যবহারকারীদের বিভিন্ন উদ্দেশ্যে কাস্টমাইজযোগ্য অনেক টেমপ্লেট পনাকে দিবে ফ্রিতে। আমার কাছে সেরা একটি সফটয়্যার এটি। আমি নিজেও এটি ব্যবহার করে থাকি।

আপনি সোশাল মিডিয়া পোস্ট প্রস্তুত করতে চান, অন্য কিছু ডিজাইন করতে চান বা একটি উপস্থাপনা প্রস্তুত করতে চান, তাহলে ক্যানভা-এর টেমপ্লেটগুলি আপনাকে দারুন সাপোর্ট দিবে আপনার প্রয়োজনীয় ছবি এডিট করতে।

আমাদের শেষ কথা  

তো এই ছিল আজকের ছবি কালার করার অ্যাপস বা ছবি সুন্দর করার অ্যাপস নিয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা। আশা করি আপনারা আপনাদের কাঙ্ক্ষিত ছবি সুন্দর করার বা ছবি কালার করার সফটওয়্যারটি পেয়ে গেছেন। এ সকল এপ্স গুলো আপনি google play store থেকে পেয়ে যাবেন।

এই আটটি সফটওয়্যার বাদেও অনলাইনেআরো অনেক ধরনের সফটওয়্যার রয়েছে। সেগুলো দিয়েও আপনি অনেক ভালো ছবি এডিটিং করতে পারবেন। তবে আজকে আপনাদেরকে যে আটটিছবি কালার করার অ্যাপস শেয়ার করেছি সেগুলো দিয়ে আপনারা অনায়াসে যেকোনো ছবি এডিট করতে পারবেন একদম বিনামূল্যে। এ সমস্ত অ্যাপের পেইড সাবস্ক্রিপশনও রয়েছে। আপনি যদি পেইড সাবস্ক্রিপশন  নিয়ে থাকেন তাহলে আরো ভালো ছবি এডিটিং করতে পারবেন এই সফটওয়্যার গুলো দিয়ে। 

তো উপরে কোন কিছু বুঝতে কোন সমস্যা হলে আমাদেরকে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে পারবেন। তো এছাড়াও এরকম ইনফো রিলেটেড দারুন দারুন ব্লগ পোস্ট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটে নিয়মিত ভিজিট করুন। 

Leave a Comment