সেরা ১২টি গ্রামে ব্যবসার আইডিয়া ২০২৩ । Village Business Ideas in Bengali

গ্রামে ব্যবসার আইডিয়া ২০২৩ (Village Business Ideas in Bengali 2023)– হ্যালো বন্ধুরা,  আজকে আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করব  কিভাবে আপনি গ্রামে লাভজনক ব্যবসা করতে পারবেন। বর্তমানে অনেকে চায় শহরে না গিয়ে গ্রামে একটি লাভজনক ব্যবসা শুরু করুক। 

এছাড়াও শহরে অনেক মানুষ তাদের নিজস্ব ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।  শহরে ব্যবসার প্রতিযোগিতা অনেক। এমন অবস্থায় গ্রাম থেকে গিয়ে শহরে ব্যবসা চালানো অনেকটা কঠিন হয়ে পড়ে। তাই গ্রামের অনেক চালাক  মানুষেরা চায় যে গ্রামেই তারা তাদের একটি নিজস্ব লাভজনক ব্যবসা শুরু করুক। 

তো আপনি যদি এখন গুগলে সার্চ করে থাকেন কিভাবে গ্রামে ব্যবসার শুরু করবেন অথবা গ্রামের ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে এবং আমাদের এখানে এসেছেন এ বিষয়ে জানতে,  তাহলে আমরা বলব একদম আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন। 

আজকে আমরা আপনাদের সাথে সেরা ১২ টি গ্রামের ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে  সকল কিছু বিস্তারিতভাবে শেয়ার করব।  আশা করি আপনারা এই আইডিয়াগুলো কাজে লাগিয়ে খুব তাড়াতাড়ি ব্যবসা শুরু করে দিতে পারবেন। তো আসুন আর দেরি না করে জেনে নিই কি কি আইডিয়া আজকে আপনারা জানতে চাচ্ছেন। 

গ্রামে কি ব্যবসা করা যায়? গ্রামে ব্যবসার আইডিয়া ২০২৩ 

গ্রামে কি ব্যবসা করা যায়

আপনারা গ্রামে যেকোনো ধরনের ছোট অথবা মাঝারি ব্যবসা করতে পারবেন।  গ্রামে যেহেতু মানুষ কম থাকে,  সে ক্ষেত্রে এত বড় ব্যবসা করে লাভ নেই। চাকরি করে মানুষ যে পরিমাণ টাকা আয় করে তার থেকে বেশিও আয় করতে পারবেন গ্রামে লাভজনক ব্যবসা করে।

এই ধরুন শ্রমিক ঠিকাদার ব্যবসা,  সার ও বী জ বিক্রির ব্যবসা, সেলুন বা বিউটি পার্লার এর ব্যবসা, ছাগল পালন ও পোল্ট্রি ফার্মিং ব্যবসা, জলখাবার বিক্রির ব্যবসা, মোবাইল দোকানের ব্যবসা, বইয়ের দোকান এবং মুদি দোকানের ব্যবসা। তো আসুন এখন ব্যবসা গুলো সম্পর্কে আমরা বিস্তারিতভাবে জেনে নিই। 

১) শ্রমিক ঠিকাদার ব্যবসা

আপনি দেখবেন আপনার আশেপাশে গ্রামের অনেক মানুষ শহরে যাচ্ছে কাজের জন্য।  সেখানে গিয়ে অনেকে কাজ পায় আবার অনেকে বসে থাকে।  আবার অনেকে ভালো কাজ না পাওয়ার কারণে পরবর্তীতে গ্রামে ফিরে আসে।  এমন অবস্থায় আপনি যদি শহরে ভালো ভালো কাজের সন্ধান রাখেন,  এবং পরবর্তীতে গ্রামের  ভালো ভালো শ্রমিকের লিস্ট বানিয়ে তাদেরকে সেখানে কাজ করতে পাঠান। 

আরো দেখুন- ১০ হাজার টাকায় ব্যবসার আইডিয়া ২০২৩ (২৫টি)

তাহলে আপনি ভালো পরিমাণ কমিশন থেকে টাকা আয় করতে পারবেন। আর এটাই হচ্ছে শ্রমিক ঠিকাদার ব্যবসা। বর্তমানে এই ব্যবসা গ্রামে অত্যন্ত লাভজনক একটি ব্যবসা। তবে খেয়াল রাখবেন মানুষ সাথে কখনো দুর্নীতি করবেন না। তাহলে আপনি ব্যবসাটি ভালোমতো চালিয়ে যেতে পারবেন। 

২) সার বীজ বিক্রির ব্যবসা

আপনি নিশ্চয়ই জানেন যে বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষ কৃষিকাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে।  আর বেশিরভাগ কৃষক গ্রামে চাষ বাস করে। আর চাষবাসের জন্য তাদেরকে সার এবং বীজ কিনতে শহরে যেতে হয়। এতে তারা অনেক সময় ঠকে যায়।  আবার অনেক সময় শহর থেকে এই বীজ এবং সাহার আনতে তাদের কষ্ট হয়ে পড়ে।

এমন অবস্থায় আপনি যদি শহর থেকে ভালো মানের সার এবং বীজ কম দামে কিনে এনে,  সেটিকে অল্প কিছু টাকা বাড়িয়ে আপনি সেগুলো গ্রামে বিক্রি করতে পারে।  তবে খেয়াল রাখবেন বেশি লাভ করার জন্য খারাপ বীজ অথবা সাপ কৃষকদের কাছে দিবেন না। 

এতে করে আপনি ব্যবসাটি চলমান রাখতে পারবেন না।  যদি আপনি তাদেরকে ভালো দামে ভালো মানের সার এবং বীজ দিতে পারেন তাহলে পরবর্তীতে তারা আপনার থেকে সব সময় এই জিনিসগুলো কিনে থাকবে।

৩)ক্ষুদ্র ঋণ ব্যবসা

আমরা এবং আপনারা সকলে যা ভালো করে জানেন যে,  গ্রামের মানুষের টাকার খুব অভাব রয়েছে।  বিশেষ করে কৃষকদের  সার এবং বীজ কেনার সময় টাকার দরকার হয়। এমন অবস্থায় তারা কারো কাছ থেকে অথবা কোন ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে চায়। আবার গ্রামে অনেক সময় ব্যাংক না থাকার কারণে গ্রামের মহাজনদের কাছ থেকে তারা ঋণ নিয়ে থাকে।

মন অবস্থায় আপনি যদি গ্রামের মহাজন হিসাবে তাদেরকে কিছু পরিমাণ টাকা ঋণ দিয়ে থাকেন,  তাহলে আপনি পরবর্তীতে কিছু লাভ হিসেবে টাকা  রোজগার করতে পারবেন।  শুধু আপনাদের কাছে একটাই অনুরোধ,  এমন ব্যবসা শুরু করলে তাদের থেকে বেশি লাভ নিবেন না। অল্প সুদে তাদেরকে ঋণ দেওয়ার চেষ্টা করবেন। 

৪) মেডিকেল স্টোর ব্যবসা 

বর্তমানে গ্রামে মেডিকেল স্টোরের ব্যবসা অনেক ভালো চলে। গ্রামে কোনরকম হাসপাতাল বা ক্লিনিক না থাকায় বেশিরভাগ মানুষ মেডিকেল স্টোরে গিয়ে থাকে। এমন অবস্থায় আপনি যদি ডাক্তারি পাশ করে অথবা টুকটাক ভালোভাবে ডাক্তারি কাজ শিখে গ্রামের মেডিকেল স্টোর দিলে আপনি লাভজনকভাবে ব্যবসা করতে পারবেন।

আমাদের এখানে এটি আজকের সবচেয়ে ভালো গ্রামের ব্যবসার আইডিয়া। তবে এক্ষেত্রে আপনার লাইসেন্সের প্রয়োজন হতে পারে। তাহলে পরেকোন সমস্যাই করলে থানা পুলিশ অথবা মামলা হয়ে যেতে পারে। 

৫) সেলুন এবং বিউটি পার্লারের ব্যবসা 

বর্তমানে শহরের মতো গ্রামের ছেলেরাও চাই তাদেরকে সুন্দর দেখাক।  আর সুন্দর দেখানোর জন্য চাই সুন্দর করে চুল সুন্দর করে কাটা। আমার মেয়েদের ক্ষেত্রে মেয়েরা চায় সুন্দরভাবে সাজুগুজু করতে। এমন অবস্থায় গ্রামে যদি সেলুন এবং বিউটি পার্লারের ব্যবসা দেওয়া হয় তাহলে আপনারা মাসে ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

শুধুমাত্র দুই সপ্তাহের মতো ভালোভাবে কাজ শিখে তারা গ্রামে সেলুন এবং বিউটি পার্লারের ব্যবসা শুরু করতে পারেন। মেয়ে এবং ছেলে উভয়ই এই কাজটি করতে পারে। 

৬) ছাগল পালন ব্যবসা 

অনেক ধরনের কাজ আছে যেগুলো শহরে করা অত্যন্ত কঠিন এবং ব্যয়বহুল হয়। এরকম একটি কাজ হচ্ছে ছাগল পালন। শহরে ছাগল পালন ব্যবসা শুরু করতে হলে আপনাকে প্রথমে একটি বড় পরিসরে জায়গা নিতে হবে, তারপর ছাগলের  জন্য খাবার হিসেবে ঘাস চাষও করতে হতে পারে। এমন অবস্থায় একটি বড় পরিসরে জায়গার প্রয়োজন হতে হয় এবং তা অত্যন্ত ব্যয়বহুল হবে।

গ্রামে ছাগল পালন শুরু করতে চাইলে আপনি মাঠেই শুরু করতে পারেন এবং অল্প পরিসরে  আপনি চাইলে ছাগলের জন্য  ঘাস চাষ করতে পারেন। পরবর্তীতে ছাগলগুলো বড় হলে আপনি শহরে নিয়ে বিক্রি করলে  ভালো পরিমাণ টাকা রোজগার করতে পারবেন। 

৭) পোল্ট্রি ফার্ম ব্যবসা

গ্রামে আপনি পোল্ট্রি ফার্ম ব্যবসা ভালো মতো করতে পারবেন। বেশিরভাগ মানুষ মুরগি পালন দুটো কারণে করে থাকে।  একটি হচ্ছে মুরগির ডিম উৎপাদনের জন্য এবং অন্যটি হচ্ছে মুরগির মাংসের জন্য। যদিও গ্রামে মানুষ কম,  তবে আপনার কোন লস হবে না এই ব্যবসায়।

মাস শেষে আপনি মুরগি বিক্রি করে অথবা মুরগির ডিম বিক্রি করে ভালো পরিমাণ টাকা আয় করতে পারবেন। এটি আরেকটি লাভজনক গ্রামে ব্যবসার আইডিয়া বলে আমি মনে করি।  

৮) অনলাইনে কাজ

বর্তমানে আপনারা অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং নাম শুনে থাকেন। যদি নাও শুনে থাকেন তাহলে একবার গুগলে বা youtube এ গিয়ে সার্চ করে দেখুন। সেখানে আপনি ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে ভালোমতো ধারণা পেয়ে যাবেন। আপনি যদি গ্রামের ঘরে বসেই অনলাইনে ভালো একটি কোর্স করে,  পরবর্তীতে ফ্রিল্যান্সিং মাল্টিপ্লেসে কাজ করে টাকা আয় করতে পারেন। 

এর জন্য আপনাকে শহরে যেতে হবে না। তবে এর জন্য আপনার বাসায় ভালো ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে। তবে অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চাইলে আপনাকে একটু যাচাই-বাছাই করে কোর্স কিনতে হবে। তাহলে পরে টাকাগুলো নষ্ট হতে পারে। 

৯) ফটোকপির ব্যবসা 

শহরের পাশাপাশি গ্রামেও এই ফটোকপির ব্যবসা লাভজনক হবে বলে আমি মনে করি। বর্তমানে অনলাইনে যুগে গ্রামের শিক্ষার্থীরাও অনলাইনে দূর-দূরান্ত ক্লাস করার সুযোগ পাচ্ছে। এর জন্য তাদের অনেক সময় বিভিন্ন ধরনের নোটস অথবা কোন প্রশ্ন ফটোকপি করার দরকার পড়ে।

এর জন্য আপনি যদি গ্রামে একটি কম্পিউটার এবং ফটোকপির মেশিন এনে ফটোকপির ব্যবসা শুরু করেন তাহলে আপনি ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তবে ফটোকপির মেশিন এবং কম্পিউটার কিনতে আপনাকে ভালো পরিমান টাকা ইনভেস্ট করতে হবে। 

১০) বইয়ের দোকান ব্যবসা বা লাইব্রেরী ব্যবসা 

উপরে বলেছি যে বর্তমানে অনলাইনে যুগে পড়ালেখার প্রতি আগ্রহী হচ্ছে। তাদের শহরে গিয়ে বই কিনতে হতে পারে।  এমন অবস্থায় আপনি যদি গ্রামে একটি বইয়ের দোকান দিয়ে দেন, তাহলে বিষয়টি কেমন হয়? অত্যন্ত লাভজনক ব্যবসা হতে পারে বলে এটি আমি মনে করি। কারণ আপনাকে কিছু পরিমাণ টাকা ইংলিশ করতে হতে পারে। 

১১) মোবাইলের দোকান

বর্তমানে আধুনিক যুগে সকলেই মোবাইল ব্যবহার করে থাকে।  তেমনি গ্রামের মানুষেরা দেশের সকল খবরা খবর মোবাইল ফোন অবশ্যই কিনবে।  এমন অবস্থায় আপনি যদি গ্রামে একটি মোবাইলের দোকান দিয়ে দেন,  তাহলে আপনি ভালো পরিমান টাকা আয় করতে পারবেন। তবে এই ব্যবসাটি শুরুর আগে যে বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে,  আপনাকে অবশ্যই ভালো কোম্পানির মোবাইল ফোন বিক্রি করতে হবে।

যদি অন্য কোন ফালতু কোম্পানি থেকে মালামাল কিনে থাকেন, তাহলে সেগুলো বিক্রি করতে না পেরে উল্টো লসেপড়ে যাবেন। এরকম করে প্রায় অনেকেই ব্যবসায়ী লাল বাতি ধরিয়েছে। এছাড়াও আপনি আরো কিছু লোভনীয় ফালতু অফার পেতে পারেন খারাপ মানের কোম্পানি থেকে, সেগুলো থেকে ১০০ হাত তুলে থাকবেন। তাহলে আপনার জন্য মঙ্গল হবে। 

১২) জলখাবারের ব্যবসা 

সবাই জানেন যে কাজের অবসর টাইমে তাই সকলে নাস্তা করে থাকে।  এরকম অবস্থায় আপনি যদি গ্রামে একটি ছোট করে জলখাবারের  দোকান দার করান, এবং ভালো ভালো সুস্বাদু খাবার বিক্রি করেন,  তাহলে আপনি অল্প দিনের মধ্যেই পুরো পরিমান টাকা রোজগার করতে পারবেন। এই ব্যবসাটি লাভজনক হবে। একবার ব্যবসাটি দাঁড়িয়ে গেলে পেছনে আপনাকে আর ঘুরে তাকাতে হবে না। 

আমাদের শেষ কথা

তো এই ছিল গ্রামে ব্যবসার আইডিয়া সম্পর্কে সকল কিছু বিস্তারিতভাবে আলোচনা। আপনাদের কি কিছু টিপস দেই,  যেগুলো আপনারা মাথায় রেখে ব্যবসা শুরু করলে অনেক লাভবান হবেন।

এমন কয়েকটি টিপস হলো- কখনো লোভনীয় অফারে পা দিবেন না, কাস্টমারের সাথে কখনো প্রতারণা করবেন না, আপনার কাস্টমারকে সব সময় ভালো কিছু দেওয়ার চেষ্টা করবেন। এতে করে আপনার ফ্রিতে মার্কেটিংটা হয়ে যাবে। যত বেশি মার্কেটিং হবে তত বেশি কাস্টমার আপনি পাবেন।

আজকে আমরা গ্রামের লাভজনক ব্যবসার সকল কিছু বলার চেষ্টা আপনাদেরকে করেছি। এছাড়াও আপনাদের মাথায় আরো কোন আইডিয়া এসে থাকলে, আমাদেরকে নিচে জানাতে পারেন।

অথবা উপরোক্ত গ্রামে ব্যবসার আইডিয়াগুলো নিয়ে আরো কিছু জানার থাকলেও আমাদের জানাতে পারেন। তো এরকম আরো দারুন দারুন ব্যবসার আইডিয়া রিলেটেড ব্লগ পোস্ট পেতে হলে আমাদের ওয়েবসাইটে নিয়মিত ভিজিট করুন।  

Leave a Comment